মেসিও গাজায় শিশু হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে

মেসিও গাজায় শিশু হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে

শিশু হত্যাকারীদের পক্ষে নই, বললেন মেসি।শিশুদের ভালোবাসেন লিওনেল মেসি। ফুটবলের বাইরে যা কিছু করেন, তার অনেকটাজুড়েই থাকে শিশুরা। বিশ্বজুড়ে শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ২০১০ সাল থেকে। সেই মেসির ওপরই কিনা এসেছে এমন অভিযোগ? গাজায় বোমা হামলা চালিয়ে যে ইসরায়েল নির্বিচারে শিশুদের হত্যা করছে, তাদেরই নাকি ১০ লাখ ইউরো সাহায্য দিয়েছেন মেসি!

খবরটি পুরোই অসত্য। আর ইন্টারনেটে সেটা চাউর হয়ে যাওয়ার পর দৃঢ় কণ্ঠে প্রতিবাদ জানিয়েছেন এ সময়ের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার। অর্থ সাহায্য দেওয়া তো দূরের কথা, উল্টো ইসরায়েলের বিরুদ্ধেই কথা বলেছেন মেসি। আর্জেন্টাইন এই তারকার ভাষায়, ‘যারা শিশু হত্যা করে তাদের আপনি কোনো সাহায্য করতে পারেন না।’
কিছুদিন আগে ব্যাপারটা শুরু হয়েছিল ইন্টারনেটে একটা ভুয়া খবর ছড়িয়ে পড়ার ফলে। আলজেরিয়ার একটি ব্যঙ্গাত্মক ওয়েবসাইটকে উদ্ধৃত করে ইরানের একটি গণমাধ্যম রিপোর্ট করেছিল, মেসি ইসরায়েলকে ১০ লাখ ইউরো সহায়তা দিয়েছেন। খবরটির কোনো সত্যতা না থাকলেও ইন্টারনেটে এটি ছড়িয়ে পড়েছিল ঝড়ের বেগে।

বিশ্বকাপের পর ১০ লাখ ইউরো মেসি দান করেছেন আর্জেন্টিনার দুস্থ শিশুদের জন্য স্কুল ও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে। এরপর মেসিকে উদ্ধৃত ইরানের স্প্যানিশ ভাষার সরকারি চ্যানেল হিসপান টিভি জানায়, মেসি মোটেও ইসরায়েলকে সহায়তা করেননি। বরং শিশু হত্যাকারীদের বিরুদ্ধেই তাঁর অবস্থান। শিশু হত্যাকারী ইসরায়েলের বিরুদ্ধেই আছেন তিনি।

আরো খবর: