দৈনন্দিন জীবনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির অগ্রগতি আইসিটি

দৈনন্দিন জীবনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির অগ্রগতি আইসিটি

রাফে মুয়াজ রিদওয়ান সিনাম: আইসিটি – এর  পূর্ণ  রূপ  হল Information  and  Communication Tecnology।  যার  বাংলা  হল ( তথ্য  ও যোগাযোগ  প্রযুক্তি ) আর  দিন  দিন  এই  প্রযুক্তি  আমাদের  নানান  কাজের সাথে  সম্পৃক্ত  হয়ে  যাচ্ছে।

মানবজাতির ইতিহাসে অসংখ্য জিনিস আবিষ্কার হয়েছে এখনও অনেক কিছু আবিষ্কারের চেষ্টা চলছে এবং ভবিষ্যতেও অনেক কিছু আবিষ্কার হবে।আর এই সকল জিনিসপত্র আবিষ্কার করার জন্য শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে মানুষ নানা রকমের অভিজ্ঞতা, উদ্ভাবনী শক্তি এবং নানা প্রকারের প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে তাদের আবিষ্কারের পেছনে কাজে লাগিয়েছে।যত অভিজ্ঞতা বা উদ্ভাবনী শক্তিই থাকুক না কেন তাদেরকে তাদের আবিষ্কার সম্পূর্ণ করার জন্য কিন্তু নানান প্রযুক্তির ওপরই নির্ভর করতে হয়েছে।আগের দিনে সেই প্রযুক্তি ছিল কম উন্নত এবং কম আধুনিক।তারা আগে একটা কাজ করতে যে প্রযুক্তির সাহায্য নিত সেই কাজই এখন করতে গেলে অনেক সময় কম লাগে, যাতে আগে বেশি লাগত।

আজ থেকে একশ বা দুইশ বছর আগে যে সকল প্রযুক্তির প্রচলন ছিল সেই সব প্রযুক্তি ছিল অনেক কম কার্যকরী এবং অনেক বেশি সময় সাপেকক্ষ।আর আজকাল যে প্রযুক্তির প্রচলন রয়েছে সেসব প্রযুক্তি আগের প্রযুক্তির তুলনায় অনেকটাই বেশি কার্যকরী এবং কম সময় সাপেকক্ষ আর ভবিষ্যতে তা আরও বেশি কার্যকরী হবে।

মানুষ প্রতিনিয়তই নতুন কিছু তৈরি করার নতুন কিছু আবিষ্কার করার নেশায় মেতে থাকে এবং অনেক নতুন কিছু তৈরিও করে ফেলে।আর সেই সব আবিষ্কার আস্তে আস্তে আমাদের দৈনন্দিন জীবনে জড়িয়ে পড়ে এবং আমরা আমাদের সুবিধার্থে তার ব্যবহার শুরু করে দেই।মানব জীবনে প্রযুক্তির প্রসার এতোটাই বেড়ে গিয়েছে যে মানুষ এখন প্রযুক্তি নিয়ে নিজের মধ্যে আর সীমাবদ্ধ নেই।মানুষ প্রযুক্তিকে অনেক দূর পর্যন্ত নিয়ে গিয়েছে।

একজন সাধারণ মানুষ তার সারা জীবনই নানান পেশায় নিয়োজিত থেকে নানান কাজ কর্ম করে দিন যাপন করে থাকে।সে যত সাধারণই হোক না কেন সে কিন্তু প্রতিনিয়ত কোন না কোন প্রযুক্তির সংস্পর্শে আসে এবং সে সেই প্রযুক্তির ব্যবহার করে তার কাজ সম্পাদন করে থাকে।

আরো খবর: