আমি পড়ালিখা করলে কাজ করবে কে আর আমার ভাই-বোন খাবে কি –তাহাজুল

আমি পড়ালিখা করলে কাজ করবে কে আর আমার ভাই-বোন খাবে কি –তাহাজুল

জাহিদ হাসান জনিনবাবগন্জ থানার দাউদপুর ইউনিয়নে ওর্য়ালিংয়ের দোকান গুলো লক্ষ করলে দেখা যায়।কাজ করছে বেশির ভাগেই শিশু।তাদের মধ্যে তাহাজুল । তাহাজুল  প্রায় ৪বছর ধরে কাজ করছে লেদের দোকানে। ওর্য়ালিং করার কাজগুলো অনেক ঝুকিপূর্ন।তারা বাড়ি ঘরের জানালা,দরজা ও ড্রাম বানানোর কাজ করে। কাজগুলো করতে তার হাতুরি পিটানো থেকে শুরু করে ঝালাইও করতে হয়। যা তাদের পক্ষে করা সম্ভব নয়। তবুও তাদের পেটের দায়ে এই ঝুকিপূর্ন কাজগুলো করতে হয়।

আমি তাহাজুলকে জিঙ্গাস করি তোমার পড়ালেখা করার ইচ্ছা করে না? সে বলে আমার পড়ালেখা করার খুব ইচ্ছা।কিন্তু আমি পড়ালিখা করলে কাজ করবে কে আর আমার ভাই-বোন খাবে কি?আমি তাকে আবার জিঙ্গাস করলাম তোমার মা-বাবা নেই? সে আমাকে উওর বলে আমার মা আছে,কিন্তু বাবা নাই।বাবা অনেক আগে মারা গেছে।মা অন্যের বাসায় কাজ করে।আমি আর মা মিলে যা টাকা পাই তা দিয়ে চলে আমাদের সংসার। আমাদের দেশে তাহাজুলের মত আরো অনেক শিশু আছে যারা শিক্ষার সুযোগ পাচ্ছে না।আসুন আমরা তাদের পাশে দাড়াই এবং শিক্ষার সুযোগ দেই। আমরা সবাই মিলে শিশু শ্রম বন্ধ করি।এরকম অসহায় শিশুদের হাতে তুলি দেই বই এবং স্কুলে যাওয়ার সুযোগ করে দেই।

আরো খবর: