নানা অনিয়মে চুয়াডাঙ্গার সরকারী শিশু পরিবার !

নানা অনিয়মে চুয়াডাঙ্গার সরকারী শিশু পরিবার !

তামান্না তাবাচ্ছুম,  চুয়াডাঙ্গাঃ ১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়  চুয়াডাঙ্গা সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) কেন্দ্রটি । প্রথম দিকে ব্যাক্তি মালিকানায় চললেও পরে সরকারীকরণ করা হয়। ২৭ বছরের চলতি মাস পর্যন্ত এই শিশু পরিবার থেকে ৬৪৭জনকে নিবাসীকে পূর্ণবাসিত করা হয়েছে। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরেও কাটেনি লোকবল সংকটের সমস্যা। চুয়াডাঙ্গা সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) কেন্দ্রটি নিবাসীদের দিয়ে বিভিন্ন ধরণের ভারী কাজ করার অভিয়োগও রয়েছে।
সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে সমাজ সেবা অধিদফতরের পরিচালনায় চুয়াডাঙ্গা সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) কেন্দ্রটির নিবাসীদের আসন সংখ্যা ১০০টি। বর্তমানে এতিম নিবাসী আছে ৯৩ জন। দীর্ঘদিনেও লোকবল সংকট কাটেনি প্রতিষ্ঠানটির। chuadanga-shishu-sodon-1Sobujbarta

তবে বিভিন্ন সমস্যার মধ্যদিয়ে প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ যাবৎ শিশু পরিবার কেন্দ্রটি থেকে ৬৪৭জনকে নিবাসীকে পূর্ণবাসিত করা হয়েছে।

এর মধ্যে চাকরি ৪৬ জন, বিবাহ ১০৮, ব্যবসা ৪২, অন্যান্য সদনে ৪৭ জন ও অভিভাবকের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে ৪০৪ জনকে। প্রতিটি শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের পাঠদান চলে নিয়মিত।

শিক্ষার্থীরাও খুব আনন্দের সঙ্গেই মনোযোগ সহকারে শ্রেণিকক্ষে শিক্ষকের পাঠদান গ্রহণ করে। শিশুপরিবারটিতে সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি দর্জি বিজ্ঞান, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও চর্চা করা হয়।

সপ্তাহে ৭দিনই আমিষ খাবার দেওয়া হয় নিবাসীদের মাঝে। এরমধ্যে মাংস ২দিন,মাছ ২দিন, ডিম ১দিন। এদিকে সরেজমিন গিয়ে চোখে পড়ে শিশু পরিবারের নিবাসীদের দিয়ে ভারী কাজ করানোর দৃশ্য।

এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) কেন্দ্রটির উপ-তত্ত্বাবধায়ক(অ:তি) আবু নাসির জানান লোকবলের বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি এবং খালাম্মা ২জনের প্রেষণ বাতিল করা হয়েছিলো কিন্তু তারা মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর আত্মীয় হওয়ার কারণে তাদের পুনরায় প্রেষণ বহাল থাকে। আর ভারী কাজ করার বিষয়ে স্বীকার করে তিনি জানান এরপর থেকে আর এগুলো আর হবে না।

এসবি- মিডিয়া বার্তা/ ১২ নভেম্বর,২০১৫/ইসরাত

আরো খবর: