শেষ হলো ইন্দোনেশিয়ার রকেট ইভেন্ট “এপি আর সেফ-২২”

শেষ হলো ইন্দোনেশিয়ার রকেট ইভেন্ট “এপি আর সেফ-২২”

আ-রিয়ান(১৫), ইন্দোনেশিয়া থেকে: গত ২৮ শে নভেম্বর ও ২৯ শে নভেম্বর ২০১৫ তারিখ দুই দিন ব্যাপি ইন্দোনেশিয়ার বালিতে অনুষ্ঠিত হলো ২২ তম এশিয়া প্যাসিফিক রিজিওনাল এস্ট্রোনোমিক্যাল এজেন্সি ফোরাম ২০১৫। যেটি জাপান এরোস্পেস এক্সপ্লোরেশন এজেন্সি (জাক্সসা) এবং ইন্দোনেশিয়ান ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ এরোনেটিক্স এন্ড স্পেস (লাপান) এর যৌথ প্রযোজনা। এশিয়ার মধ্যবর্তী প্রায় ১৪ টি দেশের ১২৩ জন শিক্ষার্থী এই প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করেছে। অন্যান্য বারের মত দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশ হিসাবে বাংলাদেশের নাম প্রথম সারি থেকে বাদ যায়নি। বাংলাদেশের দলটি মোহাম্মদ মোফাক্কারুল ইসলাম, কো-অর্ডিনেটর, বাংলাদেশ এস্টোনোমিক্যাল সোসাইটি এবং আ.ফ.ম. হাসান, সহকারী শিক্ষা অফিসার, চাপাইনবাবগঞ্জ সদর এর নেতৃত্বে শেখ শরফুদ্দিন রেজা, মনন মাহমুদ স্বার্থক, মুনতাজির বিল্লা সাইফি, রাশিক ইসমাম, খন্দকার নাসরিন ইসমত আরা এবং খন্দকার নুজহাত রাফা ইসলাম অংশ গ্রহণ করেন। ২৮ শে নভেম্বর অনুষ্ঠানটি ইন্দোনেশিয়া বালির হোটেল অরেঞ্জির অডিটোরিয়ামের ইন্দোনেশিয়ান ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ আরোনেটিকস্ এন্ড স্পেস (লাপান) এর কো-অর্ডিনেটর জাসওয়াতোর বক্তব্যের মাধ্যমে শুরু হয়। জাপান এরোস্পেস এক্সপ্লোরেশন এজেন্সি (জাক্সা) র পরিচালক নোজেমু সাকুরা বক্তব্য প্রদান করেন। পরপরই বাংলাদেশ দলের শিক্ষার্থীরা তারা নিজের দেশ সম্পর্কে বর্ণনা প্রদান করেন। এই বর্ণনায় বাংলাদেশের প্রাকৃতিক দৃশ্য ও ঐহিহ্যের কথা উল্লেখ করা হয়। তাছাড়া বাংলাদেশ দল সহ সবাইকে গাড়–য়া উনসু কেনকানার কালচারাল পার্কে কালচারাল টুরে নিয়ে যাওয়া হয়, এরপর বালির সমুদ্র সৈকত জিমবারানে ডিনারের আয়োজন করা হয়। ২৯ শে নভেম্বর খুদে বিজ্ঞানীরা রকেট তৈরী করে ইন্দোনেশিয়ার বালির নিটি ম্যান্ডেলা রেনন মাঠে রকেট উৎক্ষেপণ করেন। এতে বাংলাদেশের খুদে বিজ্ঞানীদের রকেট প্রশিক্ষণের সফলতার প্রমাণ পাওয়া যায়। তারপর সন্ধ্যা ৭ টার দিকে ফ্রেন্ডশিপ ডিনারে সকল দেশের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের ্এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। একে একে সব ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে এজোস হিদায়াত সমাপনী বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ হয়।

এসবি-ভিন্ন বার্তা/৩০নভেম্বর,২০১৫/সাজিদ

আরো খবর: