ভোলায় শিশু বিবাহ রোধে কিশোরী সমাবেশ অনুষ্ঠিত

ভোলায় শিশু বিবাহ  রোধে কিশোরী সমাবেশ  অনুষ্ঠিত

গোপাল চন্দ্র দে,(১৬) ভোলা: ভোলায় শিশু বিবাহ প্রতিরোধে সমাজের কিশোরীদের সচেতন করার লক্ষ্য নিয়ে কিশোরী ক্লাবের পিয়ার লিডার দের নিয়ে কিশোরী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার ( ৫ ডিসেম্বর) ভোলা সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। ভোলা সদর উপজেলা প্রশাসন এর আয়োজনে ইউনিসেফ ও কোস্ট টাট্্েরর সহযোগীতায় কোস্ট ট্রাস্ট পরিচালিত ১৩ টি ইউনিয়নের ১২৯টি কিশোরী ক্লাবের ১৪০ কিশোরী এই সমাবেশে অংশ গ্রহন করে।

সভায় ভোলা সদর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মো: মুজাহিদুল ইসলাম এর সভাপত্বিতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ভোলা জেলা প্রশাসক মোহাং সেলিম উদ্দিন। এসময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইউনিসেফের বরিশাল বিভাগীয় প্রধান এ এইচ তৌফিক আহমেদ, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জেবুন্নেছা, ইউনিসেফের প্রেগাম অফিসার নজরুল ইসলাম, কাওছার হোসেন।
এসময় অন্যান্য দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কোস্ট ট্রাস্ট ইসিএম প্রকল্পের সম্মনয় কারী মো: মিজানুর রহমান, সহ.প্রকল্প সমন্বয়কারী দেবাশীষ মজুমদার, মো: জেলা (এলসিবিসিই) অফিসার মর্তুজা খালেদ,উপজেলা (এলসিবিসিই) অফিসার রুবিনা ইয়াসমিন প্রমুখ ।
এসময় বক্তারা বলেন, বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে কিশোর কিশোরী ক্লাব গুলো বর্তমানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। তাই ক্লাবের সকল সদস্যদের সক্রিয় থাকতে হবে। যেন আর কোন কন্যা শিশুর বাল্য বিবাহর স্বীকার না হয়।

তারা আরো বলেন, বাল্য বিবাহ একটি সামাজিক ব্যাধি। এর ফলে মাতৃমিত্যু ও শিশু মৃত্যু হার বৃদ্ধি পাচ্ছে। অনেক শিক্ষার্থীরা বাল্য বিবাহ ফলে অনেক শিক্ষার্থী স্কুল থেকে ঝড়ে পরছে। শিশু বিবাহ পরিবার দেশ, সমাজ ও জাতির জন্য অভিশাপ। কোন অবস্থাতেই মেয়েদের ১৮ বছর আগে এবং ছেলেদের ২১ বছর আগে বিয়ে দেয়া যাবে না।

আর কেউ যদি বিবাহের ব্যবস্থা করে থাকে তার শিশু বিবাহ আইনে তার শাস্তি পেতে হবে। এর জন্য আমাদের সকল কিশোরীকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে বাল্য বিবাহ কে ‘না’বলতে হবে। সবাই সচেতন হলে আমরা খুব শ্রিখই ভোলা জেলাকে বাল্য বিবাহ মুক্ত জেলা হিসাবে ঘোষনা করতে পারবো। পরে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে ভূমিকা রাখায় ৩ টি ক্লাবিকে কিশোরী ক্লাবকে পুরষ্কিত করা হয়। এগুলো হলো শিবপুর ইউনিয়নের যমুনা ক্লাব,কাচিয়া ইউনিয়নের দোয়েল ক্লাব, ভেলুমিয়া ইউনিয়নের শাপলা ক্লাব

আরো খবর: